ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়? blogger earning for beginner 2022

ব্লগিং আয় আমি প্রায় বিভিন্ন প্লাটফর্ম এই প্রশ্নটা করতে দেখি যে ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়। এই প্রশ্নের সঠিক কোন উত্তর দেওয়া কখনো সম্ভব নয়। অনুমান করা যায় কত টাকা পর্যন্ত আয় করা সম্ভব অথবা মানুষ কত টাকা আয় করে?

বাংলা ব্লগ থেকে কত টাকা আয় করা যায়
বাংলা ব্লগ থেকে কত টাকা আয় করা যায়

শুধু অর্থ আয় করার জন্য যে মানুষ ব্লগিং করে তা সঠিক নয়। এমন অনেক ব্যাক্তি আছে যারা নিজের পেশন থেকে ব্লগিং করে। এটা সত্য যে ব্লগিং করে বিভিন্ন উপায়ে আয় করা সম্ভব কিন্তু অনেক ব্যাক্তি সেটা জানে না।

গ্লাসডোরের হিসাব অনুযায়ি একজন ব্লগার প্রতি বছর ৩০,০০০ হাজার ডলার থেকে ১ লক্ষ ডলার পর্যন্ত আয় করে থাকে।


ব্লগার কত টাকা আয় করে?

একজন ব্লগার প্রথম বছর প্রতি মাসে ৫০০ হতে ১,০০০ ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারে। তার পরের বছর গুলোতে ব্লগিং আয় বৃদ্ধি পেতে থাকে। একজন ফুলটাইম ব্লগার প্রতি বছর গড়ে ১ লক্ষ হতে ৫০ হাজার ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারে শুধু প্রতি সপ্তাহে ২০ হতে ২৮ ঘন্টা দিয়ে।


ব্লগের আয়ের নির্ভরতাঃ

ব্লগের আয় সম্পূর্ণ ভাবে নির্ভরকরে ব্লগের ট্রাফিকের উপর। আপনার ব্লগ ট্রাফিক যত বেশি হবে ব্লগ থেকে আয় তত বেশি হবে। ব্লগের আয় নির্ভর করে আরও একটি বিষয়ের উপর আর সেটা হল ইমেইল লিষ্টের উপর।

আপনার ইমেইল লিষ্ট বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে ব্লগের আয় বৃদ্ধি পায়। কারন, আপনার ইমেইল লিষ্ট থাকলে সেই লিষ্টের ব্যক্তি গুলোর কাছে আপনার ব্লগের নিউ পোষ্টের প্রচারনা চালাতে পারবেন।


বাংলা ব্লগিং করে আয়ঃ

 অনুমানিক বাংলায় ব্লগিং করে আয় প্রথম বছর ৩৬০ হতে ৪০০ ডলার, দ্বিতীয় বছর ৫০০ হতে ৬০০ ডলার, তৃতীয় বছর ৭০০ হতে ১০০০ ডলার পর্যন্ত ইনকাম হতে পারে (অনুমানিক ব্লগিং আয় )। আমি যে আয়ের কথা গুলো বললাম তা শুধু এড রেভিনিউ ভিত্তি। এড রেভিনিউ ব্যতিত হাজার হাজার উপায় আছে ব্লগ থেকে আয় করার।


ইংরেজি ব্লগিং করে আয়ঃ

একটি ইংরেজি প্রথম শ্রেনীর ব্লগ প্রথম বছর ২৫ হাজার হতে ৫০ হাজার ডলার পর্যন্ত আয় করে, দ্বিতীয় বছর ১ লক্ষ ডলার, তৃতীয় বছর ২৫০ হাজার ডলার এবং চতুর্থ বছর ৫ লক্ষ ডলার পর্যন্ত আয় করে। ব্লগের আয় দিন দিন ‍বৃদ্ধি পাওয়ার কারন হচ্ছে ব্লগ ট্রাফিক Revenue। আপনার রেভিনিউ বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে ব্লগ আয় বৃদ্ধি পায়।


ব্লগ ট্রাফিক সমান রেভিনিউ

আপনার ওয়েবসাইটের প্রতিটি এড পেজে ভিজিট করার জন্য জন্য পাবেন ০.০১ থেকে ০.২৫ সেন্ট, এটা অবশ্য নির্ভর করে আপনার ওয়েব সাইটের টপিক বা বিষয় নির্বাচনের উপর।

প্রতি দিন ১,০০০ হাজার পেজ ভিউ করার জন্য মাসে আয় করতে পারবেন ১০০ হতে ১৫০ ডলার। ( এটা অনুমান নির্ভর উত্তর সুতরাং আয় কম বা বেশি হতে পারে।

যদি কোন ব্লগের পেজ ভিউ প্রতি মাসে ১ লক্ষ হয় তাহলে মাসে আয় হবে ১,০০০ হতে ২৫,০০ ডলার। আপনার ব্লগ টপিক ইন্স্যুরেন্স হয় তবে প্রতি ব্লগ এড ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার জন্য পাবেন ০.২০ সেন্ট। অন্য সব বিষয়ের উপর ব্লগ হলে প্রতি এড পেজ ভিউ করার জন্য পাবেন ০.০২ থেকে ০,০৫ সেন্ট ( অনেক ক্ষেত্রে কম বেশি হতে পারে )।

সব আয় নির্ভর করবে ব্লগের ট্রাফিকের উপর। আপনার ব্লগ সাইটের ট্রাফিক বেশি হলে আয় বেশি হবে।


ব্লগ থেকে আয় করার জন্য কী টাকা ইনভেস্ট করতে হয়

অবশ্যই আপনাকে ব্লগ থেকে টাকা আয় করার জন্য টাকা ইনভেস্ট করতে হবে। কারন ব্লগিং বর্তমানে ব্যবসায় একটি ধরন। সমস্ত বিশ্বে অনেক ব্লগিং কোম্পানি আছে। যেমন Dotdash কোম্পানিটির ১৪টির বেশি ব্লগ সাইট আছে। এবং প্রতিটি ব্লগ সাইট প্রচুর জনপ্রিয়। Dotdash প্রতি মাসে প্রায় কয়েক লক্ষ ডলার আয় করে।

পরিপূর্ণ ব্লগ সাইট প্রতিষ্টিত করার জন্য আপনাকে মিনিমাম ২ থেকে ৩ লক্ষ টাকা ইনভেস্ট করতে হবে। ব্লগ সাইট ইনভেস্ট করার ক্ষেত্রে সুবিধা হল ধীরে ধীরে ইনভেস্ট করতে হয়।

সঠিক ভাবে ব্লগিং করার জন্য ইনভেস্ট করতে পারলে আপনার আয় হবে গ্যারান্টি। ব্লগিং বিনিয়োগ বিষয় বিস্তারিত ভাবে জানার জন্য নিচের লেখাটি পড়তে পারেন।


ব্লগিং থেকে আয় শুরু হতে কত দিন সময় লাগে

ব্লগিং শুরু করার আগে পরিকল্পনা করা জরুরি। সঠিক পরিকল্পনা ছারা ব্লগিং সেক্টরে সফল হওয়া অসম্ভব। ব্লগ শুরু করার প্রথম কাজ হচ্ছে বিষয় নির্বাচন করা। আপনি যে বিষয় নিয়ে ব্লগ তৈরি করবেন তা বাছাই করতে হবে।

আপনি হয়তো ভাবছেন যে কোন বিষয় ব্লগিং শুরু করা যায়। আপনি যখন প্রফেশনাল ব্লগিং শুরু করবেন তখন সটিক ভাবে বিষয় নির্বাচন করতে হবে।

আপনাকে এমন একটি বিষয় নির্বাচন করতে হবে যার কম্পিটিশন কম কিন্তু সার্চ ভেলু ভালো।

ব্লগ বিষয় বাছাই করা শেষে ব্লগ ডিজাইন নিয়ে চিন্তা করতে হবে। এক্ষেত্রে প্রফেশনাল ব্লগ গুলোকে ফলো করতে পারেন।

ব্লগ ডিজাইন করা শেষ হলে, অনপেজ এসইও রিলেটেড বিষয় গুলোর কাজ করতে হবে। যেমন কিওয়াড রিসার্স, কম্পিটিশন রিসার্স, গুগল এনালাইটিক, Google Search Console Setup ইত্যাদি বিষয় গুলো সেটাপ শেষ করতে হবে।

ব্লগ কন্টেন্ট লিখতে হবে। এই লেখার কাজে আপনাকে সময় লাগবে বেশি। ব্লগের প্রতিটি কন্টেন্ট অবশ্যই ইউনিক এবং অনপেজ এসইও ফ্রেন্ডলি হতে হবে। কন্টেন্ট কোয়ালিটির ক্ষেত্রে কোন ধরনের কম্প্রমাইজেশন করা যাবে না।

সব কিছু সময় নির্ধারন করলে সময় লাগবে মিনিমাম ২ থেকে ৩ মাস। ২ থেকে ৩ মাস পরে আয় শুরু হতে মোট সময় লাগবে ৫ থেকে ৬ মাস।

Post a Comment

2 Comments

  1. This comment has been removed by the author.

    ReplyDelete
  2. অনলাইন ইনকাম রেপিড ওয়ার্কার থেকে গড়ে বসে আয়ে

    আপনার অ্যাটিকেল পরে অনেক ভালো লাগল

    স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকাম রেপিড ওয়ার্কার থেকে গড়ে বসে আয়ে

    আমি নিজে এই সাইটে কাজ করি তাই ভাবলাম কাজটি আপনাদের সাথে শেয়ার করব

    রেপিড ওয়ার্কার কিভাবে আপনি কাজ করবেন কিভাবে একাউন্ট তৈরি করবেন সমস্ত কিছু বর্ণনা দেওয়ার চেষ্টা করবো

    এটি মাইক্রো জব সাইট, প্রতিদিন 2 থেকে 3 ঘন্টা কাজ করে 5 থেকে 10 ডলার আয় করা সম্ভব

    এই সাইটে কাজ করার আগে আপনাকে কিছু নিয়ম জেনে নিতে হবে তাই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন

    আরও পড়ুন

    ReplyDelete