দুধ ও আনারস একসাথে খেলে কি স্যাতিই মানুষ মারা যায়!! জেনে নিন আসল স্যাতিটি

আসামুআলাইকুম বন্ধুরা,

আশা করি সবাই ভালো আছেন, আমি ও ভালো আছি আপনাদের দোয়াই। আজকে আমি যে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে যাচ্ছি, সেটি আপনাদের খুবই পরিচিত একটি বিষয় যা আমরা ছোটবেলা থেকেই শুনে আসছি।আর সে বিষয়টি হলো আনারস আর দুধ একসাথে খেলে কি হয়? বা একটু আগে পরে খেলে কি হয়? আনারস আর দুধ একসাথে খেলে কি সত্যি মানুষ মারা যায় কি না সে বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। তো সবাই একটু মনোযোগ দিয়ে শুনবেন বিষয়টি এতদিন যেটা ভেবে আসছি সেটাই কি স্যাতি না মিথ্যা।



তো যখন এই বিষয়টা পুরো পৃথিবীতে আলোড়ন সৃষ্টি করে তখন বিজ্ঞানীরা এই বিষয়ে রিসার্চ করে, তারা একটা ইদুরকে আনারস আর দুধ একসাথে মিশিয়ে খাওয়ালেন কিন্তু ইদুরটির শেষে কিছুই হলো না।


তো এ থেকে বোঝা গেলো যে, এটি সম্পুর্ণ একটি ভুল ধারণা  যা মানুষের মাঝে এতদিন ধরে প্রচলিত আছে।

তবে, আনারস আর দুধ একসাথে খেলে যে মানুষের কিছুই হবে না এমনটি নয়। তো কি হবে যদি একজন মানুষ আনারস আর দুধ একসাথে খায় আর ঠিক কি কারণে এমনটি হয় সে বিষয়ে এখন আলোচনা করবোঃ

আমরা সবাই জানি যে, আনারস একটি টক জাতীয় খাবার, অর্থাৎ এটি একটি এসিডিক ফুড। আর আনারসে এক ধরনের এনজাইম পাওয়া যায়, যার নাম ব্রোমেলেই [Bromelain] যাতে রয়েছে এন্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান। এই এনজাইম প্রোটিনের বিপাকে সাহায্য করে।


আর আমরা জানি যে দুধে প্রচুর পরিমাণে প্রয়োজনীয় প্রোটিন থাকে। তো যখন আপনি আনারস খাওয়ার পর দুধ খাবেন।তখন আনারসের থাকা ব্রোমেলেইন এনজাইম দুধের প্রোটিন কে ব্রেকডাউন অর্থাৎ ভাঙ্গা শুরু করে। আর এর ফলে আপনি পেটে ব্যথা অনুভব করেন। আর এটা হচ্ছে মূল বিষয়।

তবে হ্যা, যদি আপনারা অত্যাধিক পরিমাণে আনারস ও দুধ খান তাহলে আপনাদের পেটে অনেক ব্যথা,বমি বমি ভাব বা বমি হওয়া, অথবা ডায়রিয়ার মতো সমস্যা হতে পারে, তবে যে মানুষ মারা যাবে, এটা একটি  গুজব ছাড়া কিছুই না।

তবে একটা কথা, আমরা জানি খাবার-দাবার হজম শুধু পেটের মধ্যে হয়। কিন্তু একবারও ভাবি না আমাদের মস্তিস্ক কিন্তু সরাসরি এই হজম প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ করে। আমি যদি চিন্তা করি খাবারটি খেয়ে আমার কোন একটা সমস্যা হবে তাহলে কিন্তু সমস্যা ঘটে যাবার সম্ভাবনাই বেশি।

শেষে একটা কথায় বলি,  মনে সন্দেহ নিয়ে কোন কিছু খাবেন না। যা কিছু খাই না কেন নিশ্চিন্তে খাবেন।

বিঃদ্রঃ আপনার যদি মনে হয় আনারস, দুধ একসাথে খেলে বিপদ হতে পারে, তাহলে এটি থেকে দূরেই থাকুন।

তো আজকে টপিকটা কেমন লাগলো কমেন্ট করে যানাবেন। আর পোস্টটিকে আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করবেন। ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন।     



Post a Comment

0 Comments